তরমুজ চাষ পদ্ধতি

তরমুজ চাষ পদ্ধতি । সহজে লাভবান হবার উপায় জানুন!

তরমুজের মিষ্টতা ও সুস্বাদের জন্য অনেক জনপ্রিয় ৷ ব্যাবসায়িক উদ্দেশে ও নিজেদের খাবার জন্যও অনেকে তরমুজ চাষ করে থাকেন ৷ তরমুজ চাষ পদ্ধতি নিয়ে আজকে থাকছে বিস্তারিত৷

তরমুজ চাষ পদ্ধতি  

তরমুজের চাষের জন্য সাধারণত বীজ  বোপন করা হয় ৷ বীজ রোপন করে তরমুজ গাছ ও এর থেকে ফল লাভ করা যায় ৷

জমি প্রস্তুত : 

তরমুজের বীজ বপনের জন্য সর্বপ্রথম জমি প্রস্তুত করে নিতে হবে ৷ জমি প্রস্তুতের জন্য প্রয়োজনমতো চাষ ও মই দিয়ে নিতে হবে ৷ জমি তৈরি করা হয়ে গেলে মাদা তৈরি করতে হবে । 

উপযুক্ত আবহাওয়া :

বাংলাদেশের জন্য ফেব্রুয়ারি থেকে এপ্রিল মাস পর্যন্ত আবহাওয়া তরমুজ চাষের জন্য সর্বাপেক্ষা  উপযোগী থাকে । তরমুজের বীজ বোনার জন্য ফেব্রুয়ারি মাসের শুরুর সময় সর্বোত্তম । আগাম ফসল পেতে চাইলে বছরের শুরুতে বীজ বুনে শীতের হাত থেকে কচি চারা রক্ষার ব্যবস্থা করতে হবে । এর জন্য পলি টানেল ব্যবহার করা যায় ।

বীজ ও চারা বপন :

তরমুজ চাষের জন্য প্রথমে মাদা (গোবর বা মাটির স্তুপ) করে নিতে হয় ৷ মাদা তৈরি হলে তাতে ৪-৫টি বীজ বপন করা হয়ে থাকে । বীজ বপন করার ৭ থেকে ১০ দিন আগেই মাদা তৈরি করে মাটিতে সার মিশিয়ে দিতে হয় । ২ মিটার দূরে দূরে সারি করে প্রতি সারিতে ২ মিটার অন্তর মাদা করতে হবে । প্রতি মাদার আয়তন ৫০ সেমি. প্রশস্ত ও ৩০ সেমি. গভীর হওয়া বাঞ্চনীয় । তরমুজের চারা গজানোর পর পরই কিন্তু খেয়াল করে মাদা প্রতি দুটি করে চারা রেখে বাকিগুলো তুলে ফেলতে হবে । 

>> তাছাড়া জেনে নিন তরমুজ খাওয়ার ১৫ টি উপকারিতা !

বীজ বপণ না করে তরমুজ চাষ করার জন্য তরমুজের চারা রোপণ করা ভালো হবে । এর ফলে তরমুজের বীজের অপচয় কম হয় । তরমুজের চারা তৈরির জন্য সবচেয়ে ভালো হচ্ছে ছোট ছোট পলিথিনের ব্যাগে বালি ও পচা গোবর সার ভর্তি করে নেওয়া ৷ অতপর সে সকল ব্যাগে একটি করে বীজ বপন করা । ১ মাস বয়সের ৫-৬ পাতাবিশিষ্ট ১টি চারা মাদায় রোপণ করা হয় ।

টবে তরমুজ চাষ পদ্ধতি

টবে তরমুজ চাষ পদ্ধতি বেশ সহজ ৷ মাটির তৈরি টব বা প্লাস্টিকের কন্টেইনার এ মাটি দিয়ে তরমুজ চাষ করা যাবে ৷ টব বা কন্টেইনার হবে মাঝারি আকৃতির ৷ মাটি হিসেবে দোঁ-আশ বা বেলে দোঁ-আশ মাটি বাছাই করতে হবে ৷

মাটি ও জৈব সার একত্রে মিশিয়ে টবে দিতে হবে ৷ ঝুরঝুরে হবে মাটি ৷ বেশি শুকনো হলে ভিজিয়ে নিতে হবে পানি দিয়ে ৷ ফেব্রুয়ারি থেকে এপ্রিল মাসের ভেতর টবে বিচি বা চারা রোপন করতে হবে ৷ কেননা এ সময় তরমুজ চাষের জন্য সবচেয়ে ভালো ৷  রোদ পড়ে এরকম স্থানে টব রাখতে হবে ৷ নিয়মিত গাছে পানি দিতে হবে ও আগাছা দমন করতে হবে ৷

ব্ল্যাকবেরি তরমুজ চাষ পদ্ধতি  

ব্ল্যাক বেরি তরমুজ ব্যাপক সারা ফেলেছে কৃষকদের মাঝে ৷ ভারতীয় জাতের এ তরমুজ সারাবছর চাষ করা যায় ৷ দেখতে সুন্দর ও ফলন বেশি হয় ৷

ব্ল্যাক বেরি তরমুজ মাচা করে চাষ করা যায় ৷ যার ফলে বর্ষার সময়ও ফলন হয় ৷ উপরে উল্লেখিত তরমুজ চাষ পদ্ধতি অনুসরণ করে ব্ল্যাক বেরি তরমুজ চাষ করা যাবে ৷ 

>> কুমড়া চাষ পদ্ধতি সমূহ জেনে নিন!

শেষ কথা  

তরমুজ চাষ পদ্ধতি অনুসারে চাষ করে পরিবারে স্বচ্ছলতা আনয়ন করা যাবে ৷ বেকার যুবক, কৃষক তরমুজ চাষ করে সুন্দরমতো জীবন অতিবাহিত করতে সক্ষম হবে ৷

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top
Scroll to Top